Coming Up Sat 6:00 PM  AEST
Coming Up Live in 
Live
Bangla radio

করোনাভাইরাস মোকাবেলা, কোয়াডসহ বিভিন্ন বিষয়ে ম্যরিস পেইনের সাথে আব্দুল মোমেনের 'গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা'

Australian Foreign Minister Marise Payne had a conversation with Bangladesh Foreign Minister Dr AK Abdul Momen Source: Facebook/Senator Marise Payne

বাংলাদেশে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় অস্ট্রেলিয়া অতিরিক্ত ৫ মিলিয়ন ডলার সহায়তা দিচ্ছে। অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ম্যরিস পেইন এক ফেইসবুক বার্তায় জানান তিনি বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে মোমেনের সাথে করোনাভাইরাস মোকাবেলাসহ আরো অনেক বিষয়ে আলোচনা করেছেন।

২ জুন এক ফেইসবুক বার্তায় অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ম্যরিস পেইন বলেন, "অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশের কোভিড ১৯ মোকাবেলায় অংশীদারিত্বের সাথে কাজ করছে। আমাদের বন্ধুদের সাথে অংশীদারিত্বে আমরা ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে কোভিড ১৯-এর প্রভাব থেকে রক্ষা পেতে সহায়তা অব্যাহত রাখবো।" 

এর আগে গত ২২মে শনিবার ঢাকায় অস্ট্রেলিয়ান হাইকমিশনের এক মিডিয়া রিলিজে জানানো হয়েছিল যে বাংলাদেশে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় অতিরিক্ত ৫ মিলিয়ন অস্ট্রেলিয়ান ডলার সহায়তার ঘোষণা দিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ম্যরিস পেইন।

Marise Payne's Bangladesh visit (File photo)
Marise Payne's Bangladesh visit (File photo)
Facebook/Senator Marise Payne

অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী এই অর্থ সহায়তার বিষয়টি উল্লেখ করে বলেন, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির মাধ্যমে এই অর্থ দেয়া হবে এবং এটি ব্যয় হবে জরুরী মেডিক্যাল সামগ্ৰী, অক্সিজেন সরবরাহসহ বিভিন্ন ইকুইপমেন্ট ক্রয়, কোভিড ১৯ নিয়ে সচেতনতা, জরুরী খাদ্য এবং আর্থিক সাহায্যের কাজে। 

বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডঃ এ কে আব্দুল মোমেনের সাথে আলাপচারিতার প্রসঙ্গে মিজ পেইন উল্লেখ করে বলেন যে, তার সাথে এই অঞ্চলের অগ্রাধিকারের বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা হয়েছে, যার মধ্যে আছে কোভেক্স (COVAX)  ফ্যাসিলিটি নিয়ে গুরুতর কাজ, কোয়াডের (QUAD) মাধ্যমে কোভিড ভ্যাকসিন প্রদান। 

তিনি আরো বলেন, "আমরা বহুপক্ষীয় সহযোগিতা, জলবায়ু পরিবর্তন এবং মায়ানমারের অভ্যুত্থান ও রোহিঙ্গা সংকটের পরিপ্রেক্ষিত নিয়ে আলোচনা করেছি।" 

মায়ানমার নিয়ে আসিয়ান (ASEAN)-এর  পাঁচ দফা মতৈক্যের বিষয়টি উল্লেখ করে একই ফেইসবুক বার্তায় তিনি বলেন, "মায়ানমার নিয়ে গত ২৪ এপ্রিল আসিয়ান নেতাদের মতৈক্য একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ।" 

মিজ পেইন আরো উল্লেখ করেন যে অস্ট্রেলিয়ার সাথে বাংলাদেশের দৃঢ় উন্নয়ন এবং বাণিজ্য সম্পর্ক রয়েছে এবং তিনি প্রত্যাশা করেন ভবিষ্যতে এই অর্থনৈতিক সম্পর্ক যাতে গভীর হয় তার সুযোগ অন্বেষণ অব্যাহত থাকবে। 

অস্ট্রেলিয়া সরকার ২৪-ঘন্টার কনস্যুলার ইমার্জেন্সি সহায়তা দিয়ে থাকে। কারো জরুরী কনস্যুলার সহায়তা প্রয়োজন হলে যোগাযোগ করুন কনস্যুলার ইমার্জেন্সি সেন্টারের নাম্বারে +61 2 6261 3305 (অস্ট্রেলিয়ার বাইরে থেকে) এবং 1300 555 135 (অস্ট্রেলিয়ার ভেতর থেকে)।

অস্ট্রেলিয়ানরা যদি ভ্রমণ বিষয়ক পরামর্শ চান তবে স্মার্টট্রাভেলার ওয়েবসাইটটি দেখুন। জরুরী নয় এমন তথ্যের জন্য কাছাকাছি অস্ট্রেলিয়ান এমব্যাসি, বা কনস্যুলেটে যোগাযোগ করুন বা ইমেইল করুন smartraveller@dfat.gov.au

এসবিএস বাংলার রেডিও অনুষ্ঠান শুনুন প্রতি সোমবার এবং শনিবার সন্ধ্যা ৬টায় এবং আরও খবরের জন্য আমাদের ফেইসবুক পেইজটি ভিজিট করুন।

Follow SBS Bangla on FACEBOOK.

আরো দেখুন: