SBS Radio App

Download the FREE SBS Radio App for a better listening experience

Advertisement
Shoheli Sunjida (R). (Supplied)

স্বাস্থ্যকর খাবারের দাবি নিয়ে, মেলবোর্ন প্রবাসী বাংলাদেশী সোহেলী সানজিদার শুরু করা সামাজিক আন্দোলন পেয়েছে স্বীকৃতি। এ আন্দোলনের সাথে একাত্ম হয়ে কাজ করছে অস্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়া রাজ্যের কার্ডিনিয়া শায়ার কাউন্সিল।

বাংলায় পুরো রিপোর্ট শুনতে উপরের অডিও লিংকে ক্লিক করুন। 

By
Hasan Tariq
Presented by
Hasan Tariq
Published on
Monday, October 29, 2018 - 14:53
File size
11.69 MB
Duration
6 min 23 sec

"নতুন করে কার্ডিনিয়া শায়ারে এসেছেন আরো প্রায় ১‌৭ হাজার পরিবার।" সোহেলী সানজিদা বলেন, "অনেকটাই নতুন এ সাবার্বে শুরু থেকেই ছিল তাজা এবং স্বাস্থ্যকর খাবারের বড়ই অভাব। অথচ এ অঞ্চলের প্রায় ৬০ভাগ মানুষই ভোগছেন ডায়াবেটিক্স রোগে।"

২০১৬ সালে কাউন্সিল নির্বাচন করতে গিয়ে এ সমস্যা চিহ্নিত করেন সোহেলী। তারও আগে থেকেই পারিবারিক নির্যাতন প্রতিরোধে তিনি কাজ করে আসছেন। 

মানুষের মৌলিক চাহিদা পূরণে সোহেলী সানজিদার এসব সামাজিক কর্মকান্ডকে জাতীয় পর্যায়ে নিয়ে এসেছে 'হার প্লেস মিউজিয়াম অস্ট্রেলিয়া'। 

FOLLOW US ON FACEBOOK

মূলত অস্ট্রেলিয়ার উন্নয়নে নতুন নতুন উদ্ভাবনী চিন্তা নিয়ে যেসব নারী কাজ করে যাচ্ছেন তাদেরকে পরিচয়ের পাশাপাশি স্বীকৃতি দিয়ে আসছে এ সংগঠন। 

২০১৬ সালে যাত্রা শুরু করে হার প্লেস মিউজিয়াম অস্ট্রেলিয়া। গত ২৪ অক্টোবর প্যাকেনহাম লাইব্রেরিতে শুরু হয়েছে প্রদর্শনী 'দৃশ্যমান সম কন্ঠস্বর'। যা চলবে আগামী ১১ নভেম্বর পর্যন্ত। 

এবারের প্রদর্শনীতে যে দশজন নারী জায়গা করে নিয়েছেন তাদেরই একজন সোহেলী। তিনিই প্রথম বাংলাদেশী এবং এশিয়ান বংশোদ্ভূত, যিনি এই প্ল্যাটফর্মে স্থান পেয়েছেন। 

সামাজিক কর্মকান্ডের পাশাপাশি মূলধারার রাজনীতিতেই নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চান সোহেলী। তিনি বলেন, "রাজনীতিসহ নেতৃস্থানীয় জায়গাগুলোতে অভিবাসীদের স্থান করে নিতে হবে। অভিবাসী মহিলাদের সেটা আরও তাড়াতাড়ি করা উচিত।"

আরও খবর
ক্ষুদ্র ব্যবসায় ভালো করছেন এ্যাডিলেইড প্রবাসী বাংলাদেশীরা
"সোম থেকে শুক্রবারের গতবাঁধা চাকরি জীবন আমায় ভয় পাইয়ে দেয়। শিখতে এবং চ্যালেঞ্জ নিতে পছন্দ করি বলেই ব্যবসায় আসা," বলেছেন দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী বাংলাদেশী ব্যবসায়ী রাশেদ কবির।
বাংলাদেশী অভিবাসীর চোখে অস্ট্রেলিয়া

এটাই বুঝি সার্বজনীন ভাষা! যেখানে বিষয়বস্তু বলে দেয়ার প্রয়োজন পড়ে না। 

একটা ছবিই পারে হাজারো শব্দের চিন্তাভাবনা আনতে। এটাই ছবির ক্ষমতা। কথায় আছে, ‘ছবি নিজেই কথা বলে’।

পিদিমের আলোয় দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া
ছোট্ট একটি ইউনিটের বসার রুমের দেয়ালজুড়ে থরে থরে সাজানো বই। শয়ণকক্ষে পড়ে আছে সবেমাত্র দেশ থেকে আসা নতুন বইয়ের কয়েকটি পার্সেল বক্স।