হার্ট অ্যাটাকের পর ‘স্টেন্ট’ বসানো হয়েছে খালেদা জিয়ার হৃৎপিণ্ডে

Bangladesh's former Prime Minister, BNP leader Khaleda Zia, right, talks to Mirza Fakhrul Islam Alamgir, left, Jan. 20, 2014.

Bangladesh's former Prime Minister, BNP leader Khaleda Zia, right, talks to Mirza Fakhrul Islam Alamgir, left, Jan. 20, 2014.


Published 12 June 2022 at 12:03pm
By Ali Habib
Source: SBS

বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার হৃৎপিণ্ডে চিহ্নিত ব্লক অপসারণ করে একটি রিং বসানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। শনিবার বিকেলে গুলশান কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব এই তথ্য জানান।


Published 12 June 2022 at 12:03pm
By Ali Habib
Source: SBS


মির্জা ফখরুল বলেন,

“এনজিওগ্রাম করতে গিয়ে দেখা গেছে যে, তার মেইন আর্টারিটায় ৯৯ পার্সেন্ট ব্লক এবং সেটা চিকিৎসকরা সফলভাবে স্টেন্ট করেছেন, বেলুনিং করে ব্লক দূর করে সেখানে তারা স্টেন্ট বসিয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনের শুরুতে বিএনপি মহাসচিব বলেন,

Advertisement
“খালেদা জিয়ার মেডিকেল বোর্ড বলেছে যে, ম্যাডামের একটা মাইল্ড হার্ট অ্যাটাক হয়েছে। তারপরে হাসপাতালে থাকতে থাকতে আরেকটা উপসর্গ এসে যায়। সাফোকেশন শুরু, শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। তখন অতিদ্রুত এনজিওগ্রাম করার সিদ্ধান্ত নেয় বোর্ড।”

৭৬ বছর বয়সী খালেদা জিয়া অসুস্থ হয়ে পড়লে শুক্রবার রাতে তাকে ঢাকার বসুন্ধরায় এভারকেয়ার হাসপাতালে নেওয়া হয়। বহু বছর ধরে আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিস, কিডনি, ফুসফুস, চোখের সমস্যাসহ নানা জটিলতায় ভুগছেন খালেদা জিয়া।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল বলেন,

“ম্যাডামের হার্টের অসুখ। এটা লাইফ থ্রেটেনিং। এটা আজকে সাময়িকভাবে চিকিৎসকরা সমাধান দিতে সক্ষম হয়েছেন। তবে তার যেসব অন্যান্য রোগ রয়েছে, সেটার চিকিৎসা দেশে সম্ভব নয়, সেটা দেশের বাইরে উন্নত কেন্দ্রে নিয়ে চিকিৎসা দরকার। ডাক্তাররা আগেও ম্যাডামকে বিদেশে উন্নত টিট্রমেন্টের জন্য পাঠানোর সাজেস্ট করেছেন।”

বিএনপি চেয়ারপারসনকে বিদেশে পাঠানোর বিষয়ে কী পদক্ষেপ নেওয়া হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন,

“আমরা এখন সরকারের কাছে আপনাদের মাধ্যমে আহ্বান জানিয়েছি। দল থেকে সিদ্ধান্ত এখনও নেইনি। অবশ্যই আমরা নেব।
তবে এটা জনগণের দাবি, গোটা বাংলাদেশের মানুষের দাবি যে, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে তার জীবন রক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হোক এবং মুক্তি দিয়ে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানো হোক।”

ওদিকে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানিয়েছেন, চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়াকে বিদেশ যেতে হলে আদালতের অনুমতি লাগবে। শনিবার রাজধানীর কাকরাইলে ইনস্টিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্সের প্রতিনিধি সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তিনি যদি বিদেশে চিকিৎসা নিতে যান তাহলে আদালতে আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে যেতে হবে। কোর্ট ছাড়া খালেদা জিয়ার বিদেশযাত্রার রাস্তা খালি নেই জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, বিদেশে চিকিৎসা নেওয়ার জন্য আইনি প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়েই যেতে হবে।

প্রতিবেদনটি শুনতে উপরের অডিও-প্লেয়ারটিতে ক্লিক করুন।

Follow SBS Bangla on .

এসবিএস বাংলার অনুষ্ঠান শুনুন রেডিওতে, এসবিএস বাংলা রেডিও অ্যাপ-এ এবং আমাদের ওয়েবসাইটে, প্রতি সোম ও শনিবার সন্ধ্যা ৬ টা থেকে ৭ টা পর্যন্ত।

রেডিও অনুষ্ঠান পরেও শুনতে পারবেন, ভিজিট করুন: 

আমাদেরকে অনুসরণ করুন 




Share